খুঁজুন
সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০২৪, ৩১ আষাঢ়, ১৪৩১

মুক্তাগাছা উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি’র নেতা ও ভোটারদের অংশগ্রহণে আ’লীগ উচ্ছ্বসিত

শিবলী সাদিক খানঃ
প্রকাশিত: সোমবার, ১০ জুন, ২০২৪, ৫:১০ পিএম
মুক্তাগাছা উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি’র নেতা ও ভোটারদের অংশগ্রহণে আ’লীগ উচ্ছ্বসিত

মুক্তাগাছা উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি’র নেতা ও ভোটারদের অংশগ্রহণে আওয়ামী লীগের বিজয়ী নেতাকর্মীরা ব্যপক উচ্ছ্বসিত হয়েছে। সোমবার ১০ জুন ২০২৪ তারিখে নির্বাচনত্তর এ প্রতিবেদক সরেজমিনে উপজেলার একাধিক নেতাকর্মী ও ভোটারদের সাথে আলাপকালে নির্বাচনে বিএনপি নেতাকর্মী ও ভোটারদের উপস্থিতি নিয়ে সরব উচ্ছ্বসিত আলোচনা করতে দেখা যায়।

মুক্তাগাছায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে যে পাঁচজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা সবাই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। গেল ২১ মে উপজেলা নির্বাচনের ২য় ধাপে মুক্তাগাছা উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে পাঁচ ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছিল নেতাকর্মীরা। নির্বাচনি প্রচারে দলের শীর্ষ নেতারা পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে অংশ নিলেও বিপাকে পড়েছিল সাধারণ কর্মীরা। সব প্রার্থীই আওয়ামী লীগের হওয়ায় কার পক্ষে সমর্থন দিবেন এ নিয়ে দ্বিধা দ্বন্দ্বে ছিলেন তারা।

জানা যায়, উপজেলা নির্বাচনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী কেএম খালেদের অনুসারীরা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী ও উপজেলা আ.লীগের সহসভাপতি দেবাশীষ যোস বাপ্পী (হেলিকপ্টার) এবং পৌর আ.লীগের সভাপতি আরব আলীর (দোয়াত-কলম) পক্ষে নির্বাচন করেছেন।

বর্তমান সংসদ-সদস্য নজরুল ইসলামের অনুসারীরা উপজেলা আ.লীগের সাবেক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই আকন্দের (মোটরসাইকেল) পক্ষে প্রচারে নেমেছিলেন। অন্য দুই প্রার্থী উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম (ঘোড়া) ও ময়মনসিংহ মহানগর আ.লীগের প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য মুহাম্মদ রেজাউল করিমও (আনারস) নির্বাচনি প্রচারে ব্যস্ত সময় পার করেছিলেন।

নির্বাচনে ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী ছাড়াও ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

এছাড়া সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাই আকন্দের বড় ভোট ব্যাংক থাকলেও তার ঘনিষ্ঠ দেবাশীষ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করায় ওই ভোট ভাগ হয়ে যাবে এমনটা চিন্তা করে বিএনপি’র সমর্থন নিতে কৌশল গ্রহণ করেছিলেন, তিনি সফলও হযেছেন।

এসময় মুক্তাগাছা উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি শীর্ষ নেতৃবৃন্দ মামলা হামলা হয়রানি থেকে কিছুটা রেহাই পেতে সরকার দলীয় অনুকম্পা নিতে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাই আকন্দের পক্ষে অনেকটা প্রকাশ্যে ও গোপনে নিজ দলের ভোটারদের মটরসাইকেল প্রতিকে ভোট দিতে প্রচার-প্রচারণা করায় ভোটার উপস্থিতি ছিল লক্ষনীয়।

দায়িত্বশীল বিএনপি নেতাদের বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায়। যে সকল পদ পদবী নেতৃবৃন্দ যে ভোট কেন্দ্র শুলোতে দায়িত্ব পালন করেছেন তাদের মধ্যে মোঃ হাবিবুর রহমান (রতন), অহব্বায়ক, উপজেলা বিএনপি, মুক্তাগাছা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিজয়ী নাজমুন নাহার দিলু’র বিয়াই (সম্পর্কে মেয়ের শাশুরী)মোঃ কামরুজ্জামান (লেবু), সাবেক চেয়ারম্যান ৭নং ঘোগা ইউপি, বর্তমানে যুগ্ম আহ্বায়ক (১), উপজেলা বিএনপি। ৭নং ঘোগা ও ৮নং দাঁওগাও নির্বাচনী এলাকায় দায়িত্ব পালন করেন। এ.কে.এম জাহাঙ্গীর হাসান, সাবেক চেয়ারম্যান, ৪নং কুমারগাতা ইউপি, যুগ্ম আহবায়ক (২), উপজেলা বিএনপি ৪নং কুমারগাতা নির্বাচনী এলাকায় দায়িত্ব পালন করেন।

সাইফুদ্দিন আহমেদ বাবুল, সাবেক চেয়ারম্যান, ২নং বড়গ্রাম ইউপি, বড়গ্রাম ইউনিয়ন বিএনপি সাধারণ সম্পাদক। মোঃ দেলোয়ার হোসেন (বকুল) সভাপতি, ৩নং তারাটি ইউনিয়ন বিএনপি। মোঃ ইউসুফ, সাবেক এপিএস, জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী বর্তমানে জাকির হোসেন বাবলু’র এপিএস, মোঃ হাফিজুর রহমান খান (মঞ্জু), সাবেক চেয়ারম্যান, ৫নং বাঁশাটি ইউপি ও সাধারণ সম্পাদক ইউনিয়ন বিএনপি, মোঃ শহিদুল ইসলাম (শহীদ), সাবেক পৌর মেয়র, সভাপতি, পৌর বিএনপি, মোঃ সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক পৌর বিএনপি, মোঃ শওকত রানা (রিপন), সহ-সভাপতি পৌর বিএনপি, মোঃ হাবিবুর রহমান (হবি) ও টুটুল, সাংগঠনিক সম্পাদক, পৌর, বিএনপি নিজ নিজ এলাকায় প্রকাশ্যে নির্বাচনে ভোট দান কাজে দায়িত্ব পালন করেছেন বলে চেয়ারম্যান দোয়াত কলম প্রতীকের প্রার্থী আরব আলী, ভাইস চেয়ারম্যান মাইক প্রতীকের প্রার্থী মোঃ মোঃ মাহমুদুল হাসান মুকুল, পৌর কাউন্সিলর মির্জা আবুল কালামসহ একাধিক নেতাকর্মীরা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পক্ষে বিএনপি নেতা ও ভোটারদের ভোটে অংশগ্রহণ ছিল দৃশ্যমান তাদের উপস্থিতিতে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ গ্রহণযোগ্য উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আব্দুল হাই আকন্দ মোটরসাইকেল প্রতীকে ৬৭২৯০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আরব আলী দোয়াত কলম প্রতীকে ১৮৭৩৮ ভোট পেয়েছেন।

আওয়ামী লীগের ৫ জন প্রার্থীর ভোটারদের ভোট ভাগাভাগির কারনেই বিএনপির অংশের ভোট কাজে লাগাতে পেরেছেন বিজয়ী প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই আকন্দ এমনটাই মনে করছেন মুক্তাগাছা উপজেলার অধিকাংশ রাজনৈতিক মহল।

রাজশাহীতে এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটন বিরুদ্ধে হয়রানী মূলক মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

রাকিবুল হাসান আহাদঃ
প্রকাশিত: সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০২৪, ৭:১৬ পিএম
রাজশাহীতে এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটন বিরুদ্ধে হয়রানী মূলক মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

রাজশাহীর সিনিয়র সাংবাদিক এটিএন বাংলার স্টাফ রিপোর্টার সুজাউদ্দিন ছোটনকে ফাসানোর জন্য চাদাবাজি ও যৌন হয়রানির মিথ্যা ঘটনা সাজিয়ে পরিকল্পিতভাবে ১০ জুলাই রাত সাড়ে আটটায় চাঁদাবাজি মামলা এবং রাত সাড়ে নয়টায যৌন হয়রানির মিথ্যা মামলা করেছে বলে জানা গেছে ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় আলোচিত এই দুই মামলার মধ্যে চাঁদাবাজির মামলার বাদী নগরীর কুখ্যাত সুদ কারবারি, একাধিক চাঁদাবাজি ও সাইবার ক্রাইম অপরাধ মামলার আসামি আয়েশা আক্তার লিজা, তার
বিরুদ্ধে সাবেক একজন সংসদ সদস্যকে ব্ল্যাকমেইল করে বিপুল অর্থ সম্পদ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও সুদের টাকা খাটিয়ে সাদা স্ট্যাম্প ও ব্ল্যাংক চেকের খপ্পরে ফেলে কৌশলে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এই নারী। টাকা না পেলে আদালতে মামলা ঢুকে দিচ্ছেন। অন্তত ৩০ জন ব্যক্তি লিজার কাছ থেকে সুদে টাকা নিয়ে মামলার আসামি হয়ে এখন আদালতের বারান্দায় ঘুরছেন।

অপর মামলাটির বাদী সাংবাদিক পরিচয় দানকারী তাজমিরা তাবাসসুম নামের এক নারী। তিনি যৌন হারানির মিথ্যা মামলা করে বিভিন্ন লোকজনের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নেন বলে অভিযোগ রয়েছে। গতবছর এই নারীর দায়ের করা যৌন নিপীড়ন মামলায় আরো কয়েকজন সাংবাদিক আসামী হিসেবে এখনো আদালতের বারান্দায় ঘুরছেন। তাসমিরা তাবাসসুমের বাড়ি নগরীর চন্দ্রিমা থানা এলাকার ভদ্রা জামালপুর বলে জানা যায়।

এসকল নারীদের সাথে থানা পুলিশের সখ্যতা রয়েছে বলে পেশাদার সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে হয়রানি করার একাধিক অভিযোগ উঠেছে।

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএমইউজে) এর কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব সোহেল আহমেদ সাধারণ সম্পাদক শিবলী সাদিক খান ঘটনার বিস্তারিত জেনে বিষ্ময় প্রকাশ করে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দ্রুত সাজানো ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিলের আহবান জানিয়েছেন।

গোহালকাঠীর রাস্তার বেহাল দশা; দেখার কেউ নেই

রিয়াদ গাজী,ঝালকাঠি প্রতিনিধি:
প্রকাশিত: সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০২৪, ৩:৪৯ পিএম
গোহালকাঠীর রাস্তার বেহাল দশা; দেখার কেউ নেই

দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া ইউনিয়নের গোহালকাঠী গ্রামের একমাত্র রাস্তার অবস্থা বেহাল। এতে চলাচলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন গোহালকাঠী গ্রামের হাজারো মানুষ।

জানা যায়, উপজেলার দপদপিয়া ইউনিয়নের নরউত্তমপুর-গোহালকাঠী প্রধান সড়ক গোহালকাঠী থেকে ভোটকেন্ড পর্যন্ত একটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। গোহালকাঠি গ্রামের বাসিন্দাদের একমাত্র রাস্তা। প্রায় ২০ বছর আগে৷ রাস্তায় ইট বিছানো হয়েছিল। কিন্তু এখন বেশিরভাগ ইটই মাটি থেকে উঠে খানা-খান্দ সৃষ্টি হয়েছে। ফলে অল্প বৃষ্টি হলেই এ রাস্তা দিয়ে আর চলাচল করা যায় না।

সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, এ রাস্তার ইট উঠে গিয়ে ছোট-বড় খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। অনেক জায়গায় রাস্তার দু’ধারের মাটি সরে গিয়ে রাস্তাগুলো ভেঙে পড়েছে। ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, ভ্যানগাড়ি ও মোটরসাইকেল আরোহীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তাগুলো ডুবে কাঁদা সৃষ্টি হয়। যার ফলে এ রাস্তা দিয়ে আর চলাচল করা যায় না।

অটোচালক হানিফের বাড়ি গোহালকাঠী। অটো চালিয়েই চলে তার সংসার। রাস্তা নিয়ে তার অভিযোগ, উপজেলার কত রাস্তা ঠিক হচ্ছে, কিন্তু আমাদের রাস্তা হচ্ছে না। মাঝে মধ্যে মনে হয় আমরা এ দেশের জনগণ না। তিনি আরও বলেন, ভাঙা রাস্তার কারণে অটো বেশিরভাগ সময়ই টেনে নিতে হয়।

সুমন মিয়া, রিয়াদ গাজী, কুদ্দুস খান, জাকির হাং সহ স্থানীয়রা জানায়, গোহালকাঠী গ্রামের বাসিন্দাদের একমাত্র রাস্তা হলো এটি। আমাদের দুর্ভোগের শেষ নেই। প্রায় ২০বছর পূর্বে এ রাস্তাটিতে ইট বিছানো হয়েছিল। কিন্তু এখন পর্যন্ত রাস্তাটি আর পাকা হয়নি। দুঃখের বিষয় গত তিন বছর ধরে রাস্তার বিভিন্ন অংশের ইট সরে গিয়ে গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। যার ফলে একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তাটি চলাচলের অনুপযুক্ত হয়ে পরে। এমনকি গ্রামের মধ্যে রিক্সাওয়ালারাও আসতে চায় না।

এ বিষয়ে দপদপিয়া ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার সুজাত শিকদার বলেন, এই মুহূর্তে কোনো বরাদ্দ না থাকায় রাস্তাটি কবে নাগাদ ঠিক করা হবে তা সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না। তবে আমাদের মাথায় আছে। স্থানীয়দের দাবি বর্তমান উন্নয়ন বান্ধব সরকারের কাছে আবেদন জানাই অতি দ্রুত রাস্তাটি যেন সংস্কার করা হয়।

কোটা বৈষাম্যের বিরুদ্ধে সিলেটে শিক্ষার্থীদের ১ দফা আন্দোলন

সিলেট প্রতিনিধি মোঃ ফখর উদ্দিনঃ
প্রকাশিত: রবিবার, ১৪ জুলাই, ২০২৪, ৯:২৪ পিএম
কোটা বৈষাম্যের বিরুদ্ধে সিলেটে শিক্ষার্থীদের ১ দফা আন্দোলন

সকল গ্রেডে অযৌক্তিক ও বৈষাম্যেমুলক কোটা বাতিল করে সংবিধানে উল্লিখিত অগ্রসর গোষ্ঠী ও বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন (প্রতিবন্ধীদের) জন্য কোটাকে ন্যূনতম পর্যায়ে এনে সংসদে বিল পাস করার দাবি জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

সিলেটে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আয়োজনে ১৪ জুলাই রবিবার সন্ধ্যা ৭টায় নগরীর চৌহাট্টাস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে মশাল মিছিল বের হয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কোর্ট পয়েন্টে এক বিক্ষোভ সমাবেশে মিলিত হয়।

এম.সি কলেজের শিক্ষার্থী তানজিনা বেগমের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় সাকিব আহমদ, এম.সি কলেজের আয়শা আক্তার, লিডিং ইউনিভার্সিটির বুশরা সুহাইল, সিলেট সরকারি কলেজের সানি, সরকারি মদনমোহন কলেজের আল মাহমুদ, রাজু আহমদ, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সির মাশরুখ জলিল প্রমুখ সহ সিলেট বিভিন্ন কলেজ ও বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষাবৃন্দ।
সমাপনী বক্তব্যে মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সির শিক্ষার্থী তারেক আহমেদ বলেন, কোটা সংস্কারের ১ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে আমরা সিলেটের জেলা প্রশাসক শেখ রাসেল হাসানের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতি বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছি। স্মারকলিপিতে সংসদে জরুরি অধিবেশন ডেকে সরকারি চাকরির সকল গ্রেডে শুধুমাত্র পিছিয়ে পড়া/ অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জন্য ন্যূনতম (সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ) আইন পাস এবং দেশের বিভিন্ন জায়গায় আন্দোলন কালে যে মামলা করা হয়েছে তা তুলে নেয়ার দাবী জানানো হয়েছে। আমাদের দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা তাদের বক্তব্যে বলেন, আমাদের সর্বজনশ্রদ্ধেয় মুক্তিযোদ্ধারা যুদ্ধে অংশগ্রহণকালে ব্যক্তিগত কোনো সুবিধা চেয়েছিলেন কিনা জানিনা। দেশ স্বাধীন করার পর স্বাভাবিক নাগরিক সুবিধা ব্যতিরেকে বাড়তি কোনো সুবিধা চেয়েছিলেন, এমনটি কোথাও পাই নি আমরা। এমনকি জীবিত আছেন এমন হাতেগোনা মুক্তিযোদ্ধারাও বাড়তি সুবিধা দাবি করছেন, এমন কিছু শুনছিও না আমরা। আমরা ইতিহাস পড়ে, জেনে, শুনে এতটুকু নিশ্চিত যে, এ ভূ-খন্ডের উপর তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের করা নানান সীমাহীন বৈষম্য আর অন্যায়ের বিরুদ্ধে ওনারা যুদ্ধে গিয়েছেন, জীবনবাজি রেখে স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। আমরা তাদের সম্মান করি, তাদের যেকোনো সময়ের অসচ্ছলতা, অসুস্থতা, দুর্বলতার প্রেক্ষিতে সহযোগিতার হাত বাড়াতে চাই, তাদের পরিবারের পাশে দাঁড়াতে চাই। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সরকার তাদেরকে ও তাদের পরিবারের পাশে থেকেছে, বিপদে-আপদে সহযোগিতা করছে। বর্তমান সরকারের আমলে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা আরও সম্মানজনক অবস্থানে এসেছে। চিকিৎসা সহ জীবনধারণের প্রয়োজনে বাড়তি আরও সুবিধা সংযুক্ত হয়েছে।

এমতাবস্থায়, চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা কিসের প্রেক্ষিতে, কোন স্বার্থে? এখন না মুক্তিযোদ্ধারা চাকরির প্রতিযোগিতায় নামবে, না তার ছেলেমেয়েরা চাকরিতে প্রতিযোগিতা করবে? ৩য় প্রজন্ম তথা নাতি-পুতিদের জন্য কোটাকে ‘মুক্তিযোদ্ধা কোটা’ নাম দেওয়া কি আদৌ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সম্মানজনক দেখায়? এটাকে ‘মুক্তিযোদ্ধা কোটা’ বলে মুক্তিযোদ্ধাদের করুণা/ দীন-দক্ষিণার পাত্র না করে কষ্ট করে ‘নাতি-পুতি কোটা’ নামে প্রচার করুন। এতে আমাদের মুক্তিযুদ্ধ আর মুক্তিযোদ্ধারা অসম্মানের হাত থেকে রেহাই পাবে অন্তত।

এই অস্বাভাবিক কোটা ব্যবস্থা কত প্রজন্ম পর্যন্ত, কত বছর পর্যন্ত চলবে? এই কোটা কি এখন বৈষম্যের পর্যায়ে চলে যায়নি? এই কোটা ব্যবস্থার আড়ালে কি এখন অযোগ্য, অথর্বরা বাড়তি সুবিধা পাচ্ছে না? আমরা সিলেটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা সবসময় বৈষম্যমূলক কোটার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছি। ১৮ তে আমরা ছিলাম, ২৪ সালেও আমরা রাজপথে আছি ইনশাআল্লাহ। এই দেশে সরকারী চাকরির ক্ষেত্রে কোনো বৈষম্য থাকবে না। আমরা এবং আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম তাদের বাপ দাদার কোটায় চাকরী নয় তারা যেনো মেধার ভিত্তিতে চাকরী পায়।

রাজশাহীতে এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটন বিরুদ্ধে হয়রানী মূলক মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ গোহালকাঠীর রাস্তার বেহাল দশা; দেখার কেউ নেই কোটা বৈষাম্যের বিরুদ্ধে সিলেটে শিক্ষার্থীদের ১ দফা আন্দোলন সাংবাদিক জুয়েল খন্দকারের বিরুদ্ধে কাউন্সিলর বাবুর মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা ময়মনসিংহে জলাবদ্ধতার কারণে বন্ধ হওয়ার পথে সাইফুল ফিলিং স্টেশন; সিটি কর্পোরেশনের দৃষ্টি আকর্ষণ ময়মনসিংহের বোররচর ইউনিয়নে চলছে রমরমা জুয়া খেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ জরুরী দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশে সড়কের শাহজাদার হুমকি ধামকির মোকাবিলা করবে সাংবাদিক সমাজ শেরপুরে পুলিশের এএসআই এর অঢেল সম্পদের পাহাড় আদালতের নির্দেশনায় তদন্ত করছে দুদক সাংবাদিকতায় দায়বোধের সীমানা এবং উইদাউট বর্ডার রাঙামাটি ছাত্রলীগের কমিটিতে অছাত্র বিবাহিত চাকরিজীবী টেন্ডারবাজ নিয়ে নতুন কমিটি গঠন ময়মনসিংহে মাদক মামলায় জামিনে এসে হাবিসহ দুই যুবকের রমরমা ইয়াবা ব্যবসা লুটপাট আর টাকা পাচারে কারা এগিয়ে “পারলে তারা গণমাধ্যমেরও কবর রচনা করতে চান” ময়মনসিংহের শুভ হত্যার মামলার ৬ আসামীর জামিন না মঞ্জুর করেছেন আদালত সিএমপি কমিশনার উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক সাইফুল ইসলাম যোগদান করলেন সাংবাদিকদের বিতর্কিত করায় লাকীর বিরুদ্ধে এক হাজার কোটি টাকার মানহানী মামলার ঘোষণা- বিএমইউজে শেরপুরে পাহাড়ী ঢলে ৩ উপজেলার বাঁধ ভেঙ্গে কমপক্ষে অর্ধশত গ্রাম পানিবন্দি বিএমইউজে’র ফেনী জেলা কমিটির সভাপতি সাঈদ খান সাধারণ সম্পাদক মাসুম বিল্লাহ ভূঁইয়া লায়লা কানিজ লাকী’র বক্তব্যে বিএমউজে’র নিন্দা; প্রতিবাদ সভা মানববন্ধনের ডাক লাকী‘র বেদবাক্যে অন্ধ বিশ্বাসীরা সাংবাদিকদের বিতর্কিত করতে বড়ই উৎসাহী বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ইউনিয়ন নওগাঁ জেলার সভাপতি খোরশেদ সম্পাদক হাবিব নির্বাচিত গোয়াইনঘাটে শ্যাম কালা ও রয়েলের নেতৃত্বে চলছে সীমান্তে চোরাচালান ব্যবসা গফরগাঁওয়ে বাঁশঝাড়ে কিশোরী প্রেমিকা ধর্ষণ প্রেমিককে গ্রেপ্তার মহানবী (সা.)-এর ঈদের প্রবর্তন ও বিদায় হজ্জের ভাষণ ছাগলকান্ডে আলোচিত মতিউরকে সরিয়ে যাদের স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছে বাঙালির প্রতিটি অর্জনে আওয়ামী লীগ ওতপ্রোতভাবে জড়িত -শেখ হাসিনা ময়মনসিংহে নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা আসামী গ্রেপ্তার; রহস্য উদঘাটনে কোতোয়ালী পুলিশ ছাগলই বিশাল সম্পত্তির ইতিবৃত্ত বের করে দিল রাজস্ব কর্মকর্তা মতিউর রহমানের  দুদকের মুখোমুখি ৪৩টি দপ্তরের সরকারি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ময়মনসিংহে তরুনী গণধর্ষণ পূর্বক হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে কোতোয়ালী পুলিশ; গ্রেপ্তার-৩