খুঁজুন
শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৯ আষাঢ়, ১৪৩১

লক্ষাধিক ভোটের বড় ব্যবধানে মসিক মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন ইকরামুল হক টিটু

সময় ৭৫ ডেস্ক রিপোর্টঃ
প্রকাশিত: রবিবার, ১০ মার্চ, ২০২৪, ২:২৭ এএম
লক্ষাধিক ভোটের বড় ব্যবধানে মসিক মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন ইকরামুল হক টিটু

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন (মসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে পুণরায় বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি, সদ্য সাবেক মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু। তিনি প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে লক্ষাধিক ভোটের বড় ব্যবধানে নির্বাচিত হয়েছেন। ঘড়ি প্রতীক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ১ লাখ ৩৯ হাজার ৬০৪ ভোট।। তাঁর বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এডভোকেট সাদেকুল হক খান মিল্কী টজু ৩৫ হাজার ৭৬৩ ভোট পেয়েছেন।

শনিবার (৯মার্চ) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত সিটি করপোরেশন এর ১২৮টি কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ করা হয়। ভোট গণনা শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ফলাফল জানান জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ঘড়ি প্রতীক নিয়ে ইকরামুল হক টিটু (ঘড়ি)১,৩৯,৬০৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়াও মসিকের ১২৮ কেন্দ্রে মেয়র পদের প্রার্থী সাদেকুল হক খান মিল্কি টজু হাতি ৩৫৭৬৩, ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম ঘোড়া-১০,৭৪৩, রেজাউল হক পেয়েছেন ১,৪৮৭ ভোট এবং লাঙ্গল প্রতীকে শহীদুল ইসলাম স্বপন ১,৩২১ ভোট পেয়েছেন।

উল্লেখ্য, ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের ৩৩ ওয়ার্ডের ১২৮টি ভোটকেন্দ্রের ৯৯০ বুথে দেড় হাজার ইভিএমে ভোটগ্রহণ করা হয়। এতে প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে চারজন পুলিশ ও ১২ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করেছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে পাঁচজন পুলিশ ও ১২ জন আনসার সদস্য ছিলেন।

সেই সঙ্গে স্ট্রাইকিং ফোর্সের পাশাপাশি সাত প্লাটুন বিজিবি, ১১প্লাটুন পুলিশ, আর্মড পুলিশ এবং আনসার সদস্য, ১৭টিম র‌্যাব ছাড়াও ৩৩ জন নির্বাহী হাকিম (ম্যাজিস্ট্রেট) এবং ১১ জন বিচারিক হাকিম (জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট) দায়িত্ব পালন করছেন।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনে মোট ভোটার তিন লাখ ৩৬ হাজার ৪৯৬। এর মধ্যে এক লাখ ৬৩ হাজার ৮৭১ জন পুরুষ এবং এক লাখ ৭২ হাজার ৬১০ জন নারী এবং তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন নয়জন।

নির্বাচনী পরিস্থিতি সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, শুরুর দিকে ভোটার উপস্থিতি কিছুটা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে ভোটারের সংখ্যা। ভোট পড়েছে ৫৬ শতাংশ।

প্রায় প্রতিটি কেন্দ্রেই পুরুষ ভোটারের তুলনায় নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। নগরীর ১৯ নং ওয়ার্ড ব্যাতিত কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। শান্তিপূর্ণভাবেই ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। ভোটকেন্দ্রের বাইরে ভোটারসহ সাধারণ মানুষের ব্যাপক উপস্থিতি দেখা গেছেে। তাদের উপস্থিতে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করেছে। মূলত মেয়র পদে নির্বাচন ঘিরেই তাদের মাঝে বাড়তি উৎসাহ যোগ করছে।

মসিক মেয়র পদে ৫ জন ছাড়াও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৬৯ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৪৯ জন প্রার্থী হন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় ১১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

বেশিরভাগ ওয়ার্ডেই প্রার্থীর সংখ্যা ছিল ৪ থেকে ৬ জন। সর্বোচ্চ ৮ জন প্রার্থী ছিলেন ৩টি ওয়ার্ডে। ফলে ময়মনসিংহে ভোটার উপস্থিতি ভালো ছিল বলে মনে করছেন জনসাধারণ। নির্বাচনে দায়িত্বরত আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ভুমিকা ছিল প্রসংশনীয়।

ময়মনসিংহে জলাবদ্ধতার কারণে বন্ধ হওয়ার পথে সাইফুল ফিলিং স্টেশন; সিটি কর্পোরেশনের দৃষ্টি আকর্ষণ

সময় ৭৫ রিপোর্টঃ
প্রকাশিত: শুক্রবার, ১২ জুলাই, ২০২৪, ১:৩৮ এএম
ময়মনসিংহে জলাবদ্ধতার কারণে বন্ধ হওয়ার পথে সাইফুল ফিলিং স্টেশন; সিটি কর্পোরেশনের দৃষ্টি আকর্ষণ

ময়মনসিংহ নগরীর পুলিশ লাইন এলাকায় ব্যস্ততম ময়মনসিংহ টু টাঙ্গাইল রাস্তা পাশে স্বনামধন্য মেসার্স সাইফুল ফিলিং স্টেশন এর পিছন ও ডান বামের দুই পাশে লাগুয়া বহুতল ভবনের ড্রেনের পানি মেইন রাস্তার সংলগ্ন ড্রেনে নিষ্কাশন না হয়ে বছরের বারোমাস ফিলিং স্টেশন এর সামনে জলাবদ্ধতা লেগেই থাকে। এবিষয়ে পানির জলাবদ্ধতা নিরসনে সিটি কর্পোরেশন ও সওজ এর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন সচেতন মহল।

অতিবৃষ্টি এবং ড্রেনেজ ও বাসাবড়ীর পানিতে এই জলবদ্ধতা সৃষ্টি হয়, যে কারণে নির্মাণাধীন সওজ এর রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত সহ ফিলিং স্টেশনের অফিস রুম, স্টোর রুম, গার্ড রুম, বাথরুম ক্যাশিয়ার রুমে ড্রেনের পানি ঢুকে জলাবদ্ধতা হয়। এছাড়াও ফিলিং স্টেশনের ভূগর্ভস্থ রিজার্ভ ট্যাঙ্কির কোটি টাকার অধিক মূল্যের তরল জ্বালানি তেল সংরক্ষণ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। গত ২/৩ মাস পূর্বে ফিলিং স্টেশন এর অফিস আঙ্গিনা সহ ভিটি দুই ফুট উঁচু করে ঢালাই পাকা নির্মাণ করা হয়েছে।

গত মাসে ফিলিং স্টেশন এর সামনের প্রধান রাস্তা উঁচু করে পুনঃনির্মাণের কারণে আবারো অসহনীয় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে ফিলিং স্টেশনের মূল্যবান যন্ত্রপাতি, সামগ্রী ও অফিস কক্ষের প্রয়োজনীয় আসবাব ও কাগজপত্র নষ্ট হচ্ছে। জলাবদ্ধতা নিরসনে সিটি কর্পোরেশনের একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করেও কোন সাড়া পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য ময়মনসিংহ নগরীর পুলিশ লাইন এলাকার মেসার্স সাইফুল ফিলিং স্টেশন সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ময়মনসিংহ অঞ্চলের সরকারি বেসরকারি ও ব্যক্তিগত মালিকানাধীন যানবাহনে ও কৃষি ক্ষেত্রে গুণগত ও সঠিক ওজনে জ্বালানি তেল সরবরাহ করে সকলের প্রশংসা কুড়িয়েছে। অত্র ফিলিং স্টেশন থেকে দিবা রাত্র ২৪ ঘন্টা জ্বালানি তেল সংগ্রহকারী দের সাথে আলোচনা করে জানা গেছে, ফিলিং স্টেশন বন্ধ হলে ময়মনসিংহ নগরীর অফিস আদালত ও সাধারণ মানুষ সীমাহীন দুর্ভোগে পতিত হবে।

সাধারণ মানুষের বক্তব্য অতি দ্রুত ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন এবং সড়ক ও জনপদ সহ সংশ্লিষ্ট মহলের কার্যকরী প্রদক্ষেপে এই জলাবদ্ধতা নিরসনের মাধ্যমে ফিলিং স্টেশনটি চালু রাখার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানানো হয়েছে।

ময়মনসিংহের বোররচর ইউনিয়নে চলছে রমরমা জুয়া খেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ জরুরী

সময় ৭৫ রিপোর্টঃ
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই, ২০২৪, ১০:৩৪ পিএম
ময়মনসিংহের বোররচর ইউনিয়নে চলছে রমরমা জুয়া খেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ জরুরী

ময়মনসিংহ সদর উপজেলা ৩নং-বোররচর ইউনিয়নে দীর্ঘদিন ধরে চলছে রমরমা জুয়ার আসর, জুয়া বিরোধী প্রশাসনিক কঠোর পদক্ষেপ চান এলাকাবাসী।
ময়মনসিংহ সদর উপজেলা বোররচর ইউনিয়নের বার্তীপাড়া মোক্তার বাড়ির ফিশারির পাশে একটি স্পটে দীর্ঘদিন ধরে চলছে এই জুয়ার আসর। বোররচর ইউনিয়নে জনগণ জুয়া বন্ধে কঠোর পদক্ষেপ চান চরাঞ্চলবাসী।

এলাকাবাসীর অভিযোগ জুয়ার আসর গুলোকে কেন্দ্র করে মাদক সিন্ডিকেট সহ বিভিন্ন অপরাধীদের দৌরাত্ম্য চলছে। সূত্রে জানাযায় এলাকার প্রভাবশালী একটি চক্র এসব জুয়ার আসর চালাচ্ছে। জুয়ারীরা বলে বেড়াচ্ছে প্রশাসন ম্যানেজ করে এসব জুয়া আসর চালানো হয়। চরাঞ্চলের সাধারণ মানুষ জুয়া খেলার বিরুদ্ধে কথা বলতে সাহস পাইনা।

চরাঞ্চলের আতংকের নাম ডাকাত সাহেব আলী পিতা মৃত ছমেদ আলীর ছেলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা রয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।একাধিক মামলার আসামী সাহেব আলী সহ ইউপি সদস্য জয়নাল আবদিন ক্ষমতার দাপটে প্রকাশ্যে গ্রামে রমরমা জুয়ার আসর চালাচ্ছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলে এই জুয়ার আসর। এলাকাবাসী নিষেধ করলে জুয়াড়িরা মারমূখী হয়ে হুমকি ধামকি দেয়। তবে বেশির ভাগ লোক জুয়া খেলতে এসে নিঃস্ব হয়ে বাড়ি ফিরছে। প্রতিনিয়ত জুয়া আসর চালানোর কারণে অনেক পরিবার নিঃস্ব হয়ে যাচ্ছে ফলে বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ডে জড়িত হচ্ছে। এলাকার জনগণ এ ব্যাপারে বলেন ইউনিয়নে প্রতিনিয়ত জমজমাট জুয়া বন্ধ করতে কেউ এগিয়ে আসছে না। এবিষয়ে কেউ অভিযোগ দিতে সাহস পায় না।

স্থানীয়রা বলেন আমাদের সন্তানদের নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তায় আছি। প্রশাসনের কর্মকর্তারা মাঝে-মধ্যে অভিযান পরিচালনা করে ছিচকে মাদক ব্যবসায়ী ও জুয়াড়ীদের আটক করলেও মূল জুয়ার বোর্ড মালিক রয়েছে ধরা ছোয়ার বাইরে।

ইউনিয়নের বার্তীপাড়া নির্জন এলাকায় স্থানীয় প্রভাবশালী ডাকাত সাহেব আলী ইউপি সদস্য জয়নাল আবদিন গংদের নেতৃত্বে এই চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত প্রকাশ্যে রমরমা জুয়ার আসর চালাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।বোররচর ইউনিয়নের জনগণ জুয়ার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।

দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশে সড়কের শাহজাদার হুমকি ধামকির মোকাবিলা করবে সাংবাদিক সমাজ

বিশেষ প্রতিবেদকঃ
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই, ২০২৪, ২:০২ এএম
দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশে সড়কের শাহজাদার হুমকি ধামকির মোকাবিলা করবে সাংবাদিক সমাজ

দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশে সড়কের শাহজাদার হুমকি ধামকির মোকাবিলা করবে সাংবাদিক সমাজ

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের ক্ষেপাটে প্রকৌশলী শাহাজাদা ফিরোজকে তলব করেছে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর। এতেই চটে গিয়েছেন সড়কের বেপরোয়া শাহজাদা, বিভিন্ন মাধ্যমে প্রতিবেদককে দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন অবিরত। যশোর থেকে ঢাকায় এসে নাকি প্রতিবেদককে দেখে নিবে এই সওজ এর প্রকৌশলী। মাত্র ৩৪ হাজার টাকা বেতনের এই প্রকৌশলীর দুর্নীতি অনিয়মের মাধ্যমে এতটাই অর্থ সম্পদের পাহাড় গড়েছেন, যে গণমাধ্যমের কন্ঠস্বর টাকার জোরে চেপে ধরতে চান এই দাম্ভিক প্রকৌশলী। বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকা ও টেলিভিশনে প্রকৌশলী শাহজাদা ফিরোজের আয়েশী জীবনযাপন ও আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে ক্ষেপে গিয়ে সকল সাংবাদিককে দেখে নেবার হুমকি ধামকি ছাড়ছেন এই প্রকৌশলী, যা একাধিক সূত্র নিশ্চিত করে।

এ ব্যাপারে একাধিক সাংবাদিক সংগঠন জানায়, দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ করায় যদি একজন প্রকৌশলী কোন সাংবাদিককে হেনস্থা করে, তাহলে ঐক্যবদ্ধভাবে এ দুর্নীতিবাজের সকল কুট কৌশলকে মোকাবেলা করা হবে।

গত রবিবার ৭ জুলাই বিষয়টি নিশ্চিত করেন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর প্রশাসন। তারা দেশপত্রকে বলেন বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও টেলিভিশনে উপবিভাগীয় প্রকৌশলী শাহজাদা ফিরোজের আয় বহির্ভূত সম্পদ সংবলিত সংবাদ প্রকাশের পর সড়ক সেতু ও পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব এ, বি, এম, আমিনউল্লাহ নূরীর নির্দেশে অভিযুক্ত প্রকৌশলী শাহজাদা ফিরোজকে সড়ক ভবনে লিখিত চিঠির মাধ্যমে তলব করা হয়। সওজ কর্তৃপক্ষ আশ্বস্ত করেন সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ ভাবে প্রকৌশলী শাহজাদা ফিরোজের উপর আনিত সকল অভিযোগ তদন্ত করা হবে।

দুর্নীতি দমন কমিশন সূত্র জানায়, ইতিমধ্যে প্রকৌশলী শাহজাদা ফিরোজের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ ও প্রকাশিত সংবাদের আলোকে অনুসন্ধান শুরু করা হয়েছে, সূত্রটি আরো জানায় প্রকৌশলী শাহজাদা ফিরোজ ও তার পরিবারের সকল সদস্যের ব্যাংক ব্যালেন্স, স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে খতিয়ে দেখবে দুদক। অভিযোগ অনুসন্ধানের ক্ষেত্রে কোন ধরনের অনিয়মের সুযোগ নেই বলে আশ্বস্ত করে দুর্নীতি দমন কমিশন কর্তৃপক্ষ।

বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া অভিযোগে জানা যায় ঠিকাদারদের কাছ থেকে ৫ পার্সেন্ট কমিশন নেওয়া ও প্রকল্পে নিম্নমানের সামগ্রি ব্যবহার সহ অন্যান্য অনিয়মের মাধ্যমে প্রকৌশলী শাহাজাদা ফিরোজ ও তার পরিবারের আয়বহির্ভূত সম্পদ ও কোটি কোটি টাকার পাহাড় গেড়েছেন প্রকৌশলী শাহজাদা ফিরোজ । মাহবুব আলম নামে জনৈক এক ব্যক্তি শাহজাদা ফিরোজ ও তার স্ত্রী শামীমা নাছরীন এর নামে দুর্নীতি দমন কমিশনে একটি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। প্রাপ্ত অভিযোগে জানা যায়, বাসা নং- সি ব্লকের ২ নং রোডের (ফ্ল্যাট নং- এ/৬), শাহ আলীবাগ, থানা মিরপুর, ঢাকায় বসবাস করছেন শাজাজাদা ফিরোজ। অতীতে মানিকগঞ্জে কর্তব্যরত অবস্থায় নির্বাহী প্রকৌশলীর অনুগত হওয়ার কারণেই তাকে ব্যাপক ক্ষমতা প্রয়োগ করতে দেখা যেতো। তৎকালীন সময় শাহজাদা ফিরোজের বিরুদ্ধে মানিকগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঠিকাদারী টেন্ডার নিয়ন্ত্রণের অভিযোগও রয়েছে। তিনি প্রতিটি ঠিকাদারদের কাছ থেকে নিয়মিত ৫% হারে এককভাবে অর্থ আদায় করেতেন বলে জানা যায়। তৎকালীন দুদকের অভিযোগ সূত্রে আরো জানা যায় যে, শাহজাদা ফিরোজ শাহ আলীবাগ ২৩ বাসার সি ব্লকে (ফ্ল্যাট নং এ/৬), থানা মিরপুর, ঢাকা ফ্ল্যাটটি ক্রয় করেছেন প্রায় ১ কোটি টাকা দিয়ে। ঢাকার গুলশান -২ এর এফ ব্লক, বাড়ী নং- ৬৪/২। উক্ত বাড়ীটির ৩য় তলায় ২৬০০ বর্গফুটের তার একটি ফ্ল্যাট রয়েছে তার স্ত্রীর নামে, তার ব্যক্তিগত ব্যবহারে রয়েছে জাপানী হোন্ডা কোম্পানির অর্ধকোটি টাকা মূল্যের একটি বিলাসবহুল গাড়ি (ঢাকা মেট্রো গ – ৩৭-৯৪-২৩)
রাজধানীর উত্তরা হাউজ বিল্ডিং এলাকায় সেক্টর নং- ১০, বাসা নং ৬৭, রোড ১১। উক্ত বাড়ীটি তার নিজের ১ টি ফ্ল্যাট রয়েছে সরেজমিন অনুসন্ধানে যার হদিস পাওয়া যায়।

কিন্তু বিভিন্ন সূত্রে আরও জানা যায় ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানাধীন সাভার মৌজায় তার নিজ নামে ৫০ কাঠা জমি রয়েছে। সেখানে একটি কারখানা প্রতিষ্ঠিত করেছেন। আয়কর নথি মূলে বরিশাল মূল শহরে তার ১২০ শতাংশ জমি, তার স্ত্রী শামীমা নাছরীন এর নামে ঢাকার মোহাম্মদপুরের বাবর রোডে ১টি ৭ম তলা বাড়ী রয়েছে। বাড়ীটিতে ১৪টি ফ্ল্যাট রয়েছে; ঢাকার মোহাম্মদপুর বসিলা এলাকায় তার স্ত্রীর নামে কয়েক বিঘা জমি রয়েছে বলে সূত্রটি জানায়। আরও জানা যায় তার ও তার পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের নামে বেনামে বিভিন্ন জায়গায় সম্পদ ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। রয়েছে শেয়ার মার্কেটে নামে বেনামে অর্ধশত কোটি টাকার ইনভেস্টমেন্ট। এছাড়াও কয়েকটি ব্যাংকে অর্ধশত কোটি টাকার এফডিআর রয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্র জানায়। যার দুদকের অনুসন্ধানেই বেরিয়ে আসবে।

বোদ্দা জনেরা মনে করছেন প্রায় ৩৪ হাজার টাকা বেতন পেলেও সওজ এর একজন উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলীর কোটি কোটি টাকার গাড়ি বাড়ি ব্যাংক ব্যালেন্স গড়ে তোলা কিভাবে সম্ভব? সওজ এর উপবিভাগীয় প্রকৌশলী শাহাজাদা ফিরোজ কে দুদকে ডেকে নিয়ে তলব করলে এবং তার ও তার পরিবারের ব্যাংক একাউন্ট, শেয়ার বাজারে ব্যাপক বিনিয়োগের অনুসন্ধান করে তার আয়ের উৎস জানতে চাইলে বেড়িয়ে আসবে থলের ভেতর থেকে কালো বিড়াল।

ময়মনসিংহে জলাবদ্ধতার কারণে বন্ধ হওয়ার পথে সাইফুল ফিলিং স্টেশন; সিটি কর্পোরেশনের দৃষ্টি আকর্ষণ ময়মনসিংহের বোররচর ইউনিয়নে চলছে রমরমা জুয়া খেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ জরুরী দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশে সড়কের শাহজাদার হুমকি ধামকির মোকাবিলা করবে সাংবাদিক সমাজ শেরপুরে পুলিশের এএসআই এর অঢেল সম্পদের পাহাড় আদালতের নির্দেশনায় তদন্ত করছে দুদক সাংবাদিকতায় দায়বোধের সীমানা এবং উইদাউট বর্ডার রাঙামাটি ছাত্রলীগের কমিটিতে অছাত্র বিবাহিত চাকরিজীবী টেন্ডারবাজ নিয়ে নতুন কমিটি গঠন ময়মনসিংহে মাদক মামলায় জামিনে এসে হাবিসহ দুই যুবকের রমরমা ইয়াবা ব্যবসা লুটপাট আর টাকা পাচারে কারা এগিয়ে “পারলে তারা গণমাধ্যমেরও কবর রচনা করতে চান” ময়মনসিংহের শুভ হত্যার মামলার ৬ আসামীর জামিন না মঞ্জুর করেছেন আদালত সিএমপি কমিশনার উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক সাইফুল ইসলাম যোগদান করলেন সাংবাদিকদের বিতর্কিত করায় লাকীর বিরুদ্ধে এক হাজার কোটি টাকার মানহানী মামলার ঘোষণা- বিএমইউজে শেরপুরে পাহাড়ী ঢলে ৩ উপজেলার বাঁধ ভেঙ্গে কমপক্ষে অর্ধশত গ্রাম পানিবন্দি বিএমইউজে’র ফেনী জেলা কমিটির সভাপতি সাঈদ খান সাধারণ সম্পাদক মাসুম বিল্লাহ ভূঁইয়া লায়লা কানিজ লাকী’র বক্তব্যে বিএমউজে’র নিন্দা; প্রতিবাদ সভা মানববন্ধনের ডাক লাকী‘র বেদবাক্যে অন্ধ বিশ্বাসীরা সাংবাদিকদের বিতর্কিত করতে বড়ই উৎসাহী বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ইউনিয়ন নওগাঁ জেলার সভাপতি খোরশেদ সম্পাদক হাবিব নির্বাচিত গোয়াইনঘাটে শ্যাম কালা ও রয়েলের নেতৃত্বে চলছে সীমান্তে চোরাচালান ব্যবসা গফরগাঁওয়ে বাঁশঝাড়ে কিশোরী প্রেমিকা ধর্ষণ প্রেমিককে গ্রেপ্তার মহানবী (সা.)-এর ঈদের প্রবর্তন ও বিদায় হজ্জের ভাষণ ছাগলকান্ডে আলোচিত মতিউরকে সরিয়ে যাদের স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছে বাঙালির প্রতিটি অর্জনে আওয়ামী লীগ ওতপ্রোতভাবে জড়িত -শেখ হাসিনা ময়মনসিংহে নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা আসামী গ্রেপ্তার; রহস্য উদঘাটনে কোতোয়ালী পুলিশ ছাগলই বিশাল সম্পত্তির ইতিবৃত্ত বের করে দিল রাজস্ব কর্মকর্তা মতিউর রহমানের  দুদকের মুখোমুখি ৪৩টি দপ্তরের সরকারি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ময়মনসিংহে তরুনী গণধর্ষণ পূর্বক হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে কোতোয়ালী পুলিশ; গ্রেপ্তার-৩ ময়মনসিংহে চুরখাই উইনারপাড় গ্রামে অর্ধগলিত নারীর মরদেহ উদ্ধার চট্টগ্রামে প্রতারক চক্রের হাতে সাংবাদিক অপহরণ; মুক্তিপণ আদায় করে ৩০ ঘন্টা পর মুক্তি নওগাঁ তোহা আইসিটি উল্লাস একাডেমী কেয়ার, গ্র্যান্ড সেলিব্রেশন ২০২৪ পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত  ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের সাফল্যে আইজিপি কর্তৃক যে সকল অফিসার ফোর্স শ্রেষ্ঠ পুরস্কার পেলেন